নভেম্বর ২৫, ২০২২, ৮:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
ওএমএস এর পণ্য বিক্রয়ে অনিয়ম বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি, তারেক রহমান ও জোবাইদা রহমানের গ্রেফতারি পরোয়ানা প্রত্যাহার এবং বিএনপি নেতা জাকির খানের মুক্তি চাই – আতাউর রহমান মুকুল একজন ভালো জীবনসঙ্গীর বৈশিষ্ট্য সিদ্ধিরগঞ্জে ‘কিশোর গ্যাংয়ের’ হামলায় প্রাণ গেলো কলেজ ছাত্রের বন্দরে বেদে ও তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ দেশের সমৃদ্ধি কামনায় রুবেল মাদবরের উদ্যোগে আইমান ট্রেডার্সের দোয়া ও ইফতার রূপগঞ্জে ডিবি পুলিশের অভিযানে বিপুল পরিমান গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার চিত্তরঞ্জন খেয়া ঘাটে ইজারাদার- মাঝিদের ঘাট জমা নিয়ে সিদ্ধান্তহীনতা, নৌকা বন্ধ তিন দিন সময়ের পরিক্রমায় মরে যায় এমপি-মন্ত্রী, মরেনা রেলওয়ে কালো বিড়াল গোপন বিয়ের জের ধরে খুন, আটক ১ গাইবান্ধা পলাশবাড়ীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১, আহত ৬ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক নিয়োগ লিখিত পরীক্ষার সময় সূচী প্রকাশ র‌্যাব-১১’র অভিযানে নারীসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক কিশোরগঞ্জে লুপ কাটিংয়ের মাটি বিক্রি হচ্ছে রাতের আধারে, ব্লক নির্মানে হচ্ছে অনিয়ম পুরোনো চেহারায় চাষাড়ার অবৈধ অটো স্ট্যান্ড নীট কনসার্ন গ্রুপের লিফট ছিঁড়ে অন্তঃসত্ত্বা নারীসহ ১৪ শ্রমিক আহত প্রিয় বাসিনী বাংলাদেশ অ্যাওয়ার্ড ২০২০-২১ পেলেন নারায়ণগঞ্জের আফরোজা ওসমান আগামী ২৩ শে জুন ২১ জেলার ভাগ্যের দুয়ার খুলছে স্বপ্নের পদ্মা সেতু নাসিক-১০নং ওয়ার্ডে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে কাউন্সিলর খোকনের দিনভর বিভিন্ন অনুষ্ঠান ও দোয়ার আয়োজন নাসিক-১০নং ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা কাজী আমির এর উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী পালন
না’গঞ্জে লকডাউন অমান্য করে উৎপাদন ও পণ্য সরবরাহ অব্যাহত
না’গঞ্জে লকডাউন অমান্য করে উৎপাদন ও পণ্য সরবরাহ অব্যাহত

না’গঞ্জে লকডাউন অমান্য করে উৎপাদন ও পণ্য সরবরাহ অব্যাহত

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে অবৈধ কয়েল কারখানার মালিকরা উৎপাদন ও পণ্য সরবরাহ অব্যাহত রাখার অবিযোগ পাওয়া গেছে।

প্রথমে রেডজোন (ক্লাস্টার এরিয়া) এবং পরে হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত করে পুরো নারায়ণগঞ্জকে লকডাউনের ঘোষণা দেয়া হয় (অবরুদ্ধ)আগামী ২৫’এপ্রিল পর্যন্ত। বন্ধ রয়েছে সকল সরকারী- বেরসকারী অফিস, আদালত, গার্মেন্টস, ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ও গণপরিবহন। জনসমাগম ঠেকাতে রাস্তায় নেমেছে পুলিশ,র‌্যাব ও সেন বাহীনি পাশা পাশি প্রতিটি রাস্তায় বসানো হয়েছে স্বেচ্ছাসেবি দল।

 

এ পরিস্থিতিতে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১নং ও ২নং ওয়ার্ডে অবৈধ কয়েল কারখানা গুলো এখনো চালু রয়েছে। যার ফলে অবৈধ কয়েল কারখানার শ্রকিরা রয়েছে করোনা ভাইরাসের ঝুকিতে। অবৈধ কয়েল কারখানা গুলোতে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে প্রতিদিন প্রবেশ করছে বেশ কিছু ছোট কভ্যার্ড ভ্যান। এ ছোট কভ্যার্ড ভ্যান গুলোতে সরবরাহ করা হচ্ছে কয়েল। এ কভ্যার্ড ভ্যানগুলো যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন শহরে। এসব ছোট কভ্যার্ড ভ্যানের ড্রাইভার, হেলপাররা কারখানায় প্রবেশের ফলে খুব সহজেই তাঁদের থেকে শ্রমিকরা করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা ঝুকিতে রয়েছে।

 

শ্রমিকদের না দেওয়া হচ্ছে মাক্স, না দিচ্ছে হ্যান্ড গ্লোবস। ক্যামিকেল মিশ্রিত এ কয়েল গুলো খালি হাতে নড়া-চাড়া করায় শ্রমিকরা রয়েছে স্বাস্থ্য ঝুকিতে। এ শ্রমিকদের মধ্যে বেশ কয়েক জন শিশু শ্রমিক দেখা যায়। এ অবৈধ কয়েল কারখানার মালিকরা শ্রম আইন অমাণ্য করে শিশুদের দিয়ে কম  বেতনে বিষাক্ত ক্যামিকেলের কাজ করায় নিচ্ছে। অপরদিকে সরকারী গ্যাস চুড়ি করে সরকারকে রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছে।

 

জানা যায় তাদের ক্যামিকেল সরবরাহ ও বিক্রয় করার কোন অনুমোদন নাই।

 

শ্রমিকদের গাঁদা-গাঁদি করে বসিয়ে নূন্মতম দূরত্ব বজায় না রেখে কাজ করিয়ে নিচ্ছে। যার ফলে চরম ঝুকিতে দিন যাচ্ছে অবৈধ কয়েল কারখানায় কর্মরত শ্রমিকদের।

 

এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, আমরা কিছু বলতে গেলে মামলার ভয় দেখায়। তাই কেউ সাহস করে প্রতিবাদ করে না। কিন্তু এ প্রানঘাতী করোনা ভাইরাসের মধ্যেও তারা এলাকাবাসীকে জিম্মি করে অবৈধ কয়েল কারখানা গুলো খোলা রেখেছে, প্রশাস কিছু বলছে না কেন? এটা আমাদেরকে হতবাক করেছে।

 

তারা আরো জানান,নারায়ণগঞ্জ যদি লক ডাউন হতে পারে সারা বাংলাদেশের কর্মসংস্থান যদি বন্ধ হতে পারে অবৈধ কয়েল কারখানা গুলো বন্ধ হবে না কেন? আমরা কি নিরাপত্তায় যেতে পারবো না?

 

অবৈধ কয়েল কারখানার একাদিক শ্রমিক জানায়, আমরা কি মানুষ না? আমাদের জীবনের কি কোনো মূল্য নেই? নাকি বড়লোক কারখানা মালিকরা বেঁচে থাকবে আর সাধারণ মানুষ মরবে। কারখানায় না আসলে কারখানার মালিকরা আমাদের চাকরি থেকে বখাস্থ করে দিবেন বলে হুমকি দিয়ে আমাদের দিয়ে কাজ করায় নিচ্ছে। আমরা দ্রুত ছুটি চাই এবং ছুটি থাকাকালীন সময়ে সরকার ঘোষিত সকল সুবিদা চাই।

 

শ্রমিকরা করোনা ভাইরাসে কারখানা বন্ধ করার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক, নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার ও র‌্যাব-১১’র হস্থক্ষেপ কামনা করেছেন।

 

এদিকে সরোজমিনে কারখানার ভিতরে গিয়ে দেখা যায়, সামাজিক দূরত্ব নেই বললেই চলে, শ্রমিকদের মুখে কোন মাক্স নেই, হাতে কোন গ্লাব্স নেই। যার ফলে করোনা ভাইরাস যদি করোর মধ্যে সক্রামিত হয় তাহলে নারায়ণগঞ্জ জেলা আরও ঝুঁকির মধ্যে পরবে।

এলাকার এক মুরুব্বি নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক, তিনি জানান, কিভাবে একটি জেলায় লকডাউন থাকার পরেও প্রশাসনের চোখের সামনে কারখানা চলতে পারে। সচেতন মহল মনে করে স্থানীয় প্রশাসনকে মাসহারা দেওয়ায় কোন প্রকার ব্যবস্থা নিচ্ছে না প্রশাসন।

 

মিজমিজী মাদ্রাসা রোড হাজেরা মাকের্ট, একলাসের বুসরা কয়েল, মৌচাক চিশতিয়া বেকারীরর উত্তর পাশে জাহাঙ্গীরের বসুন্ধরা কয়েল ও আলমের ডিকে বস কয়েল, ধনুহাজী রোড এলাকায় মিরাজের রোস্টার কয়েল ও মিজমিজি বাতেন পাড়া এলাকায় মহিউদ্দিনের পিসিভি কয়েলসহ আরো অনেক অবৈধ কয়েল কারখানা রয়েছে।

সংবাদ টি শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি ’বর্তমান খবর'কে জানাতে ই-মেইল করুন- bartomankhobar@gmail.com’ আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও খবর...।


Bartoman Khobar ads
Bartoman Khobar ads